আমানত ও ঋণের সুদহার সীমা মানছে না অনেক আর্থিক প্রতিষ্ঠান

শনিবার, নভেম্বর ১৯, ২০২২

ঢাকা: অধিকাংশ আর্থিক প্রতিষ্ঠান আমানত ও ঋণের সর্বোচ্চ সুদহারের নির্দেশনা মানছে না। মোট ২৯টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সেপ্টেম্বরে ২৪টি প্রতিষ্ঠানের আমানতের গড় সুদ ছিল ৭ শতাংশের বেশি। একইসঙ্গে চারটি প্রতিষ্ঠান ঋণে ১১ শতাংশের বেশি সুদ নিয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ হালনাগাদ প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা অর্থসূচককে বলেন, আর্থিক প্রতিষ্ঠানের আমানত ও ঋণের সর্বোচ্চ সুদহারে একটি অলিখিত ছাড় আছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিভিন্ন নীতিও রয়েছে। নৈতিক শিক্ষা একটি নীতি। সুতরাং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো বিভিন্ন নীতি বাস্তবায়ন করবে এবং বাংলাদেশ ব্যাংক তা তদারকি করবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, সেপ্টেম্বরে আমানতে ৭ শতাংশের কম সুদ ছিলো শুধু ডিবিএইচ ফাইন্যান্স, আইডিএলসি ফাইন্যান্স, ইউনিয়ন ক্যাপিটাল, ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স এবং আইপিডিসি ফাইন্যান্সে। এছাড়া আমানতে গড়ে সর্বোচ্চ ৯ দশমিক ৭৫ শতাংশ সুদ ছিলো ফাস ফাইন্যান্সে। একই সময়ে উত্তরা ফাইন্যান্সে আমনতের সুদহার ছিলো ৯ দশমিক ৬০ শতাংশ।

এ ছাড়া ফিনিক্স ফাইন্যান্স, আবিভা ফাইন্যান্স, প্রাইম ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং, প্রিমিয়ার লিজিং, ফার্স্ট ফাইন্যান্স এবং সিভিসি ফাইন্যান্সের আমানতের সুদহার ছিলো ৯ শতাংশের আশপাশে। এ সময় ঋণে ১১ শতাংশের বেশি সুদ নিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স, ইসলামিক ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, সিভিসি ফাইন্যান্স এবং আভিভা ফাইন্যান্স।

এদিকে ব্যাংকগুলো যেকোনো মেয়াদের আমানত নিতে পারে। তবে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো তিন মাসের কম মেয়াদে কোনো আমানত নিতে পারে না। এছাড়া আস্থা ও পরিচিতিসহ বিভিন্ন কারণে ব্যাংকগুলোর তুলনায় আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে সব সময় বেশি সুদ দিয়ে আমানত নিতে হয়।

জানা যায়, বর্তমানে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনার কারণে ব্যাংকগুলো ব্যক্তি পর্যায়ের মেয়াদি আমানতে মূল্যস্ম্ফীতির চেয়ে কম সুদ দিতে পারছে না। দেশে মূল্যস্ফীতি এখন প্রকট আকার ধারণ করেছে। এর কারণে অনেক ব্যাংকই এখন মেয়াদি আমানতে ৭ শতাংশের বেশি সুদ দিচ্ছে। যে কারণে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের আমানত পেতে সমস্যা হচ্ছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এর আগে গত ১৮ এপ্রিল বাংলাদেশ ব্যাংক সুদহারের সর্বোচ্চ সীমা বেঁধে দিয়ে একটি নির্দেশনা জারি করে। এতে ব্যাংকের পাশাপাশি ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সুদহারের বিষয় উল্লেখ করা হয়। সার্কুলারে গত ১ জুলাই থেকে আমানতে সর্বোচ্চ ৭ শতাংশ এবং ঋণে সর্বোচ্চ ১১ শতাংশ সুদহার কার্যকরের নির্দেশনা দেয় আর্থিক খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।