জাপান বিস্ময়ে ধরাশায়ী জার্মানি

বুধবার, নভেম্বর ২৩, ২০২২

স্পোর্টস ডেস্ক: সৌদি আরবের পর কাতার বিশ্বকাপে আরও এক অঘটনের জন্ম দিল জাপান। শক্তিশালী জার্মানিকে ২-১ গোলে হারিয়ে দিয়েছে এশিয়ার ‘পাওয়ার হাউস’ খ্যাত দলটি। ম্যাচের শুরুতে লিড নিয়েও হার এড়াতে পারল না থমাস মুলারের দল।

দোহার খলিফা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টায় মাঠে নামে এই দুই দল। এর আগে বিশ্বকাপ মঞ্চে জার্মানি কখনো মুখোমুখি হয়নি জাপানের। অন্যদিকে এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ড পার হতে পারেনি জাপান।

ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে থাকে দুই দল। ২০ মিনিটের মাথায় বক্সের বাইরে থেকে খিমিচের নেওয়া শট ধরে ফেলেন জাপানের গোলরক্ষক শুশি গোন্ডা। এরপর ২৬, ২৮ ও ২৯ মিনিটে তিনবার গোলের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন গুন্দোগান।

তবে ম্যাচের ৩১তম মিনিটে ভুল করে বসেন জাপান গোলরক্ষক গোন্ডা। বল বাঁচাতে গিয়ে ফাউল করে বসেন এই গোলরক্ষক। শাস্তি স্বরূপ পেনাল্টি পায় জার্মানি। এর আগে বেশ কয়েকবার আক্রমণ করেও গোলের দেখা পাননি গুন্দোগান। তবে এবার আর মিস হয়নি এই মিডফিল্ডারের। বাম দিকে নিখুঁত শটে পরাস্ত করেন জাপান গোলরক্ষক গোন্ডাকে। এরপর আর কোনও দল গোল করতে না পারায় ১-০ গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে যায় জার্মানরা।

বিরতির পর মাঠে নামার চার মিনিটের মধ্যেই দারুণ এক গোলের সুযোগ তৈরি করে জার্মানি। প্রতি আক্রমণে নিজেদের বক্স থেকে রোউম বল বাড়ান মুসিয়ালার দিকে। জাপানের পাঁচজন খেলোয়াড়কে পেরিয়ে দারুণ এক শটও নেন মুসিয়ালা। তবে সেটা বেরিয়ে যায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে।

তবে এরপরও খেই হারায়নি জাপান। সুযোগ পেলেই প্রতি আক্রমণে ভীতি জাগায় জার্মান রক্ষণভাগে। ৭৩ মিনিটে ইতোর শট দারুণভাবে ঠেকিয়ে দলকে রক্ষা করেন জার্মান গোলরক্ষক ম্যানুয়াল নয়্যার। এরপরই নিজেদের দারুণ ফুটবল খেলার পুরস্কার পায় জাপান। ম্যাচের ৭৫তম মিনিটে কারোকু মিতোমার পাস থেকে বল পেয়ে শট নেন তাকুমি মিনামিনো। তার শট প্রথম চেষ্টায় নয়্যার ফিরিয়ে দিলেও রিতসু দোয়ানের ফিরতি শটে প্রথম গোল আদায় করে নেয় এশিয়ার দলটি।

ম্যাচে সমতা ফেরানোর পর আরও আগ্রাসী হয়ে ওঠে জাপানের ফুটবলাররা। ম্যাচের ৮৩ তম মিনিটে যার ফল পায় দলটি। ফ্রি-কিক থেকে ইতাকুরার লম্বা পাস আসে তাকুমা আসানোর পায়ে। বলটি জার্মান ডিফেন্ডার শ্লোটারবেককে ফাকি দিয়ে আসে আসানোর কাছে।

এরপর দূরহ এক কোন থেকে নেয়া শটে নয়্যারের মাথার উপর দিয়ে বল জালে পাঠান বদলি নামা এই ফরোয়ার্ড। এই গোলেই জার্মান দর্শকদের চুপ করে দিয়ে জাপান সমর্থকদের উল্লাসে মাতান এশিয়ার ‘পাওয়ার হাউস’ খ্যাত দলের ফুটবলাররা।